‘আমি সর্বোচ্চ তৃপ্তিদায়ক সেক্স করতে চাই, করণীয় কি?’

আমি জেনেছি যে, দুজনের একযোগে চূড়ান্ত যৌনসুখে পৌঁছানোটাই তৃপ্তির চরম রূপ। আমরা বেশ চেষ্টাও করেছি। বিশেষজ্ঞ হিসাবে আপনি কি আমাকে এ বিষয়ে পরামর্শ দিতে পারেন?’ এমনই প্রশ্ন করেছেন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি। তিনি আরো লিখেছেন, আমি স্ত্রীকে তৃপ্তির চূড়ায় নিয়ে যেতে চাই। এ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল হেলথ কেয়ারের সোশাল সাইকোলজিস্ট এবং যৌন বিশেষজ্ঞ পেত্রা বয়ন্টন।
পেত্রা লিখেছেন, এ প্রশ্নটি আমাকে বেশ আগ্রহী করেছে। চূড়ান্ত যৌনসুখ লাভে এটা বেশ জনপ্রিয় ধারণা। তবে এ যুগে তেমনটা শোনা যায় না। এখানে পরস্পরের অংশগ্রহণে অর্গাজমের কথাই বলা হচ্ছে। কেউ কারো আগে বা পরে নয়, ঠিক একই সময়ে অর্গাজমকে বোঝানো হয়। মূলত যৌনকর্মে সুখ লাভ এবং অর্গাজনের নানা উপায় রয়েছে। এ ধারণার মাধ্যমে ব্যাখ্যাতীত যৌনসুখের সন্ধান করে মানুষ। তবে অর্গাজমকে আরো বেশি কঠিন হয়েছে এ ধারণায়।
যে কারণে মানুষের কাছে গুরুত্ব পেয়েছে : একযোগে অর্গাজম ঘটানোর পেছনে বেশ কিছু যৌক্তিক কারণ খুঁজে পাওয়া যায়। অর্গাজমের আইডিয়া যৌনতাকে আরো বেশি আকর্ষণীয় ও আকাঙ্ক্ষিত করে তোলে। দুজনের একসঙ্গে অর্গাজম ঘটানো একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায় যা দারুণ উপভোগ্য। আকাঙ্ক্ষার বিষয়টি চরমে পৌঁছে এ ধারণার মাধ্যমে। অনেক মানুষই মনে করে, একের পর অপরের অর্গাজম ঘটলে বিষয়টি একঘেয়ে হয়ে যায়। আবার এ বিষয়ের পেছনে সব ধারণাই ইতিবাচক নয়। যৌনতা সম্পর্কে ভুল শিক্ষার কারণেই এসব ধারণা প্রতিষ্ঠা পায়।
অনেকেই জানেন, একযোগে এ ঘটনা ঘটলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা রয়েছে। আবার অনেকে জানেন, এ ঘটনা ঘটাতে দুজনেরই ব্যাপক ক্রিয়াশীল থাকতে হয়। এসব আসলে ভুল ধারণা। গর্ভধারণ অন্যান্য বিষয়ের ওপর নির্ভর করে। একযোগে অর্গাজমের ওপর নয়। মিলনকে আরো বেশি আকর্ষণীয় ও উপভোগ্য করতেই মূলত যৌথ অর্গাজমের কথা বলা হয়। তা ছাড়া এমন দৃশ্যায়ন পর্ন ছবিগুলোতে বেশ জনপ্রিয়। আসলে কি ঘটতে পারে? : যৌথ অর্গাজম ছাড়াও যৌনতায় আরো অনেক কিছু রয়েছে। এর অনেক কিছুই বিবাহিতরা উপভোগ করেছেন। অনেক ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। যেমন-
১. একের পর অপরের অর্গাজম ঘটেছে এবং তা উপভোগ্য হয়েছে।
২. দুজনের অর্গাজমের মাঝে বেশ কিছু সময় কেটেছে।
৩. সঙ্গিনীর একাধিকবার অর্গাজম ঘটেছে।
৪. কারোরই অর্গাজম ঘটেনি।
৫. যেকোনো একজনের অর্গাজম ঘটেছে। আবার এর মাঝে ভুয়া অর্গাজমের ঘটনাও ঘটতে পারে। অর্থাৎ মানসিক চাপের মাঝে অর্গাজমের অভিনয়ও বিরল ঘটনা নয়। আসলে দুজনের এক হওয়ার প্রবণতা থেকেই ভুয়া অর্গাজমের বিষয়টি চলে আসে।
এমন চেষ্টা দরকার আছে কি?: এর উত্তর নির্ভর করে দুজনের ওপর। এর পেছনে কি ধরনের প্রেরণা কাজ করছে তার ওপর। হয়ত দুজনেরই ধারণাটা ভালো লেগেছে। কিংবা স্রেফ চেষ্টা করেই দেখতে চান।
এ ক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে পারেন। এ কাজে দুজনের কর্ম ও মানসিকতার ভারসাম্য থাকতে হবে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যোগাযোগে থাকতে হবে স্বচ্ছতা। দুজনের অনুভূতি দুজনের কাছেই স্পষ্ট হবে। এটা এক ধরনের পরীক্ষা যা করতে দুজনকেই আগ্রহী থাকতে হবে। তবে সফলভাবে ঘটাতে চাপ প্রয়োগ উচিত নয়। নিজের ওপরও চাপ নেওয়া যাবে না। মনে রাখতে হবে, এটা এমন কোনো কাজ নয় যাকে প্রতিষ্ঠা করতেই হবে। আসলে লক্ষ্যস্থির করে সেক্স করা বড় ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। কোনটা ভালো লাগছে এবং কোনটা লাগছে না তা নিয়ে কথা বলুন।
যৌনকর্মের সময় প্রতিটা অনুভূতি, স্পর্শ, পজিশন সবকিছুই উপভোগ করতে থাকুন। দুজনের প্রচেষ্টায় বিষয়টি ঘটতে পারে। আবার একজনও ঘটাতে পারেন দুজনেরটাই। যৌন অর্গাজম ঘটতে নাও পারে। কিন্তু এ উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করলে অন্তত তৃপ্তির ব্যাপকতা বৃদ্ধি পাবে। প্রশ্ন করুন : বিষয়টিকে আরো সম্ভামনাময় করে তুলতে পারে নানা ধরনের প্রশ্ন। কার কোনটা ভালো লাগে সে বিষয়ে প্রশ্ন করে জেনে নিন।
সঙ্গিনী কি পছন্দ করেন তা জানাটা জরুরি। সঙ্গীর কল্পনার সঙ্গে সঙ্গিনীর পছন্দ-অপছন্দ নাও মিলতে পারে। তা ছাড়া এ ধরনের আলোচনায় আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি পায়। এটি করতে গিয়ে যৌনতা যখন দীর্ঘস্থায়ী হয়, তখন তা বিরক্তিকর হয়ে উঠতে পারে। সেক্সকে দীর্ঘয়িত করলেই যে বেশি উপভোগ্য হয় তা নয়। দীর্ঘায়িত হলে একজনের বা উভয়ের উৎসাহ হারিয়ে যেতে পারে। মানুষের মাঝে এমন ধারণা প্রচলিত রয়েছে যে, সেক্সকে দীর্ঘায়িত যত করা যাবে তত ভালো। এটা যেন একটা প্রতিযোগিতা। এ ধারণা উভয়ের ওপর নেতিবাচক মানসিক চাপ ফেলে। ফলে সেক্স অনেক সময় নিরস হয়ে ওঠে। অন্যান্য মতামত : আরো অনেক বিষয় রয়েছে যার মাধ্যমে সেক্সকে দারুণ উপভোগ্য করা যায়। গর্ভধারণের উদ্দেশ্য নিয়ে বা দুজন আরো কাছে আসার জন্য যে সেক্স করা হয়, তা ধারণার চেয়েও বেশি উপভোগ্য হতে পারে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

Comments

comments