বিয়ের রাতে মিলন কতটা সুখকর !

এখন যদি কেউ আপনাকে বলে যে একটা অজানা, অচেনা লোকের সঙ্গে এক বিছানায় রাত কাটাতে হবে আপনাকে৷ কী অস্বস্তি লাগবে না আপনার? কিন্তু ভাবুন তো শুধু রাত কাটানোই নয়, একটা সময় ছিল যখন এক সম্পূর্ণ অচেনা মানুষের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হত আপনারই বয়সের কোনও মেয়ে বা মহিলাকে৷ সেই সম্পূর্ণ ধাঁধাময় মানুষটির সঙ্গে বিয়ের রাতে মিলিতও হতো তাঁরা৷

কিন্তু বর্তমানে সময় অনেক পালটে গিয়েছে, অ্যারেঞ্জ ম্যারেজের ফাঁদ থেকে মেয়েরা আজ অনেকটাই মুক্ত৷ কিন্তু তবু আজও আমাদের এই সমাজেই অনেক উঁচু-নীচু জাতপাতের বাঁধাধরা ছক আছে যেখানে আজও মনে করা হয় যে, ১৮ বছর মানেই একটি মেয়ের বিয়ের বয়স হয়ে গিয়েছে৷ ফলে দাও তাকে বাপের কাকার বয়সী একজনের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে৷ আর যদি পাত্র সরকারি চাকুরে হয় তবে তো কথাই নেই৷
কিন্ত এই সবকিছুর উর্ধ্বে যে কথাটা বলার জন্য এত ভনিতা৷ তা হল জানেন কী কতজন ভারতীর নবদম্পতি বিয়ের রাতেই মিলিত হন?

সমীক্ষা বলছে ৬৩ শতাংশ দম্পতি যারা অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ করেন তাঁরা বিয়ের রাতেই যৌন সংগমে লিপ্ত হন৷ কিন্তু অবাক হবেন এটা জেনে যে, সেই দম্পতিদের মধ্যে বেশির ভাগই বিয়ের আগে পরস্পরকে চেনেন না৷ কোনও কোনও ক্ষেত্রে বিয়ের মণ্ডপেই হয় প্রথম দেখা৷ তবে ‘বিয়ের প্রথম রাতেই ছক্কা হাঁকানো’ কী ভুল৷ সমীক্ষকরা বলছেন, সবার জন্য অবশ্যই ভুল নয়৷ তবে এটা ভুল হতে পারে দু’ধরনের মানুষদের জন্য, এক যাদের সেস্ক সম্পর্কে কোনও প্রকারের ধারনা নেই৷ আর দুই, যারা বিপরীত দিকের মানুষটির কাছে বেশি কিছু এক্সপেক্ট করেন৷
তাঁরা আরও জানিয়েছেন, বিয়েকে কোনও মতেই হালকা ভাবে নেওয়া উচিত নয়৷ কারণ এই প্রক্রিয়াতে আপনি কেবল শারীরিক ভাবেই কোনও একজনের সঙ্গে মিলিত হচ্ছেন না, মানসিক মিলনও ঘটছে৷ শরীর না একটা মাধ্যম মাত্র, যার সঙ্গে যাগ থাকে মনের৷

(Visited 1 times, 1 visits today)

Comments

comments